অনলাইনে আয় করুনআউটসোর্সিংফ্রিল্যান্সিংসিপিএ মার্কেটিং

সিপিএ মার্কেটিং এর আদ্যোপান্ত | সিপিএ মার্কেটিং শিখুন

আমরা সবাই ইন্টারনেটের মাধ্যমে অনলাইনে আয় করা সম্পর্কে জানি। বর্তমান বিশ্বে সবচেয়ে আধুনিক ও স্মার্ট আয়ের পথ হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং করা। বিশেষ করে আমাদের দেশের অনেক ছাত্রছাত্রীরা ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং করে অনেক বৈদেশিক মুদ্রা আয় করছে। এই আয়ের পদ্ধতি বাংলাদেশ সহ বিশ্বের প্রায় সকল দেশেই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

কিছু দিন আগেও শুধুমাত্র ছাত্রছাত্রীরাই ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং করার জন্য আগ্রহী থাকলেও এখন এর জনপ্রিয়তার কারনে অনেক চাকরিজীবী বা অন্য পেশার মানুষও তাদের মুল পেশার পাশাপাশি এই পথে আয় করছে। এমনকি অনেকে  বেতনভুক্ত চাকরি করার পিছনে না ছুটে ফ্রীলান্সিংকেই নিজেদের মূল পেশা হিসেবে গড়ে তুলছে। এই সিপিএ মার্কেটিং (CPA Marketing) ফ্রিল্যান্সিং বা অনলাইন আয়েরই একটি পথ।

চলুন জেনে নেয়া যাক সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে বিস্তারিত।

সিপিএ মার্কেটিং কি?

সি (C)= কস্ট (Cost)

পি (P)= পার (Per)

এ (A)= অ্যাকশন (Action)

সুতরাং সি পি এ (C P A) হল কস্ট পার অ্যাকশন (Cost Per Action)।

মূল কথা, যেকোন অ্যাকশন যেমন, কোন কিছু ডাউনলোড করা, কোন কোম্পানিতে রেজিষ্ট্রেশন করা, কোন গাড়ি বা কোম্পানি কে তাদের টার্গেটেড ট্রাফিক এনে দেওয়া, বা কোন পণ্য বিক্রি করাই সিপিএ মার্কেটিং এর কাজ। সিপিএ মার্কেটিং-এ কমিশনের পরিমাণ কম না বেশি হবে তা নির্ভর করে কাজের ধরন এবং লোকেশনের উপরে।

সিপিএ মার্কেটিং কিভাবে কাজ করে?

এর আগের ধাপে আমরা জেনেছি যে “সিপিএ মার্কেটিং কি?” চলুন এখন জেনে নেওয়া যাক সিপিএ মার্কেটিং কিভাবে কাজ করে ও কিভাবে আয় হয়?

মনে করুন কোন একটা কোম্পানি আপনাকে বললো অ্যামেরিকার মানুষদের তাদের কোম্পানির সাথে যুক্ত করতে হবে। এবং তারা অনলাইনে আপনাকে একটা ফরম দিয়ে বললো যে অ্যামেরিকার মানুষদের ইমেইল বা ফোন নাম্বার দিয়ে এই ফরমটা পূরণ করতে হবে।

এখন অ্যামেরিকার কোন মানুষ যদি সেই ফরমটা পূরণ করে এবং তাদের ফোন নাম্বার বা তাদের ইমেইল সাবমিট করে তাহলে আপনি টাকা পেয়ে যাবেন। এভাবে যত জন আপনার এই ফরম পূরণ করবে ততো জনের জন্য আপনি নির্দিষ্ট পরিমাণে টাকা পাবেন।

আবার ধরুন আপনি কোন একটা কোম্পানির একটি পণ্য বিক্রি করে দিলেন, এর বিনিময়ে আপনি টাকা পাবেন। এটাই হলো সিপিএ মার্কেটিং এর কাজ। আর এইগুলোকে বলা হয় লিড। একটা লিড এর জন্য পেমেন্ট যদি ২ ডলার হয় আর আপনি যদি এই রকম ১০টা লিড নিয়ে আসতে পারেন তাহলে আপনি ২০ ডলার পেয়ে গেলেন। এভাবে সিপিএ মার্কেটিং এর মাধ্যমে খুব সহজে দ্রুত আয় করা যায়।

সিপিএ মার্কেটিং ও এফিলিয়েট মার্কেটিং-এর পার্থক্য কি?

সিপিএ মার্কেটিং ও অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর কাজ অনেকটা একই রকম হলেও এদের মদ্ধে কিছু পার্থক্য আছে। যেমনঃ এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে আপনাকে কোন কোম্পানির পণ্য বিক্রি করতে হয়। আর সফল ভাবে বিক্রি করতে পারলেই শুধু মাত্র আপনি আয় করতে পারবেন। কিন্তু সিপিএ মার্কেটিং-এ পণ্য বিক্রি ছারাও আরও অনেক ধরনের অফার থাকে।

বলতে পারেন সিপিএ মার্কেটিং হলো অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং (Affiliate Marketing) এর একটি অংশ। কিন্তু সিপিএ মার্কেটিং এফিলিয়েট মার্কেটিং-এর চেয়ে সহজ। কারন এফিলিয়েট মার্কেটিং-এ আপনি কোন পণ্য বিক্রি না করা পর্যন্ত কোন কমিশন পাবেন না কিন্তু অন্যদিকে সিপিএ মার্কেটিং-এ আপনার ক্রেতা অ্যাফিলিয়েট লিঙ্কে গিয়ে শুধু রেজিস্ট্রেশন করে ও কোন পণ্য বা সেবা নাও কিনে তারপরও আপনি কমিশন পেয়ে যাবেন।

যেমন ধরুন, আপনার ক্লাইন্ট তাদের ওয়েবসাইটের জন্য কিছু নতুন মেম্বার রেজিস্ট্রেশন করাতে চায় এখন আপনার একমাত্র কাজ হল আপনার টার্গেটেড কাষ্টমারগুলোকে আপনার অ্যাফিলিয়েট লিঙ্কের মাদ্ধমে রেজিস্ট্রেশন করানো। তাহলেই আপনি আপনার কমিশন পেয়ে যাবেন।

সিপিএ মার্কেটিং শিখতে বা করতে কি কি প্রয়োজন?

সিপিএ মার্কেটিং-এ কাজ করতে আপনার শুধু মাত্র ৩টি জিনিসের প্রয়োজন।

১. আপনার একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ।

২. আপনার মোটামোটি স্পীডের ইন্টারনেট কানেকশন।

৩. আর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট অনেক ধৈর্য। তাই লেগে থাকার মনমানসিকতা নিয়ে তার পর সিপিএ মার্কেটিং শুরু করুন।

কারা সিপিএ মার্কেটিং শিখতে পারবেন?

সিপিএ মার্কেটিং যে কেও শিখতে পারবে। তবে আগেও বলেছি আপনার অনেক ধৈর্য থাকতে হবে।

১. যারা ইন্টারনেট সম্পর্কে জানেন ও ইন্টারনেট ব্রাউজ করতে পারেন

২. প্রতিদিন কমপক্ষে ৬ ঘণ্টা সময় দিতে পারবেন

৩. যাদের আছে অনলাইন থেকে আয় করার অদম্য ইচ্ছা, প্রচণ্ড ধৈর্যশক্তি

৪. যিনি কমপক্ষে ৬ মাস কোন টাকা উপার্জনের আশা না করে সময় দিতে পারবেন

সিপিএ মার্কেটিং করে কত টাকা আয় করা যায়?

সিপিএ করে কত টাকা আয় করা যায়?

আসলে যেকোনো কাজই না শিখলে বা না শিখে করতে গেলে সেখান থেকে আশানুরূপ আয় করা যায় না। এক্ষেত্রেও আপনাকে আগে ভাল করে কাজ শিখতে ও বুঝতে হবে। তার পরে আপনি কত টাকা আয় করতে পারবেন সেটা এটা নির্ভর করবে আপনি যে কাজটি করবেন সেটির উপর। তবে ঠিকঠাক মতো কাজ শিখে বা নিয়মিত কাজ করতে করতে দক্ষ হয়ে গেলে প্রতি মাসে হাজার ডলারের উপরও আয় করা সম্ভব।

আমরা আগেও বলেছে যে সিপিএ মার্কেটিং-এ প্রতিটি কাজের জন্য একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ আয় করা যায়। যেমনঃ অর্ডারের ক্ষেত্রে ১ ডলার থেকে ১০ ডলার, ইমেইল ক্যাপচার করার জন্য ৪ ডালার থেকে ২৫ ডলার, ইনস্যুরেন্স মার্কেটে ৫ থেকে ২৫ ডলার ইত্যাদি।

সিপিএ তে আপনি আপনার দক্ষতার উপরে ভিত্তি করে ১০ টাকা থেকে শুরু করে ১০ লাখ টাকা বা তার বেশিও আয় করতে পারবেন।

কেন সিপিএ মার্কেটিং আপনি ক্যারিয়ার হিসেবে নিবেন?

অনলাইন জগৎ বলেন আর ফ্রিল্যান্সিং বলেন, এখানে অনেক রকম কাজ পাওয়া যায়। গ্রাফিক্স ডিজাইন, এসইও, ওয়েব ডিজাইন, ওয়েব ডেভ্লপমেন্ট যাই করতে যান না কেন অবশ্যই সেই কাজে আপনার দক্ষতা থাকতে হবে। কিন্তু সিপিএ মার্কেটিং-এ আপনার কোন প্রকার দক্ষতার প্রয়োজন হবে না। শুধু নিয়ম মেনে ধৈর্য্য নিয়ে কাজ করতে হবে। বাংলাদেশে অনেকেই সিপিএ মার্কেটিং করে সফল হয়েছে এবং হাজার ডলার পর্যন্ত ইনকাম করছে। আশা করি আপনি ও সফল হবেন এবং আপনিও সিপিএ মার্কেটিং কে আপনার ক্যারিয়ার হিসেবে নিবেন

এখন চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে শুরু করবেন।

নতুনদের জন্য সিপিএ মার্কেটিং করার কৌশল

সিপিএ মার্কেটিং কিভাবে করতে হয়? (ধাপ সমুহ)

১. প্রথমেই আপনাকে সিপিএ নেটওয়ার্ক ওয়েবসাইটগুলোতে রেজিস্ট্রেশন করে ও লিংক তৈরি করতে হবে।

২. তারপর এই লিঙ্কগুলো বিভিন্ন সোশাল মিডিয়া, ই–মেইল মার্কেটিং, ডিজিটাল মাধ্যমে বিজ্ঞাপন বা এসইও করে শেয়ার বা প্রমোট করা করতে হবে।

৩. এখন আপনার সেই শেয়ার বা প্রমোট করা অ্যাফিলিয়েট লিংকের মাধ্যমে কোন কাস্টমার যেকোনো অ্যাকশন সম্পন্ন করলেই আপনি আপনার কমিশন পেয়ে যাবেন। 

সিপিএ মার্কেটিং এ কি ধরনের কাজ থাকে?

সিপিসি (CPC):

সিপিসি (CPC) হলো কস্ট পার ক্লিক (Cost Per Click)। এইকাজে আপনি ইউনিক ক্লিক এর উপর ভিত্তি করে পেমেন্ট পাবেন। কোন নির্দিষ্ট দেশের ট্রাফিক যদি আপনার নির্ধারিত লিংকে ক্লিক করে থাহলে আপনি পেমেন্ট পাবেন।

সিপিএল (CPL):

সিপিএল (CPL) হলো কস্ট পার লিড (Cost Per Lead)। লিড বলতে এখানে একজন নির্দিষ্ট দেশের ট্রাফিক যখন কোন কোম্পানির ফরম পূরণ করবে বা তাদের ই-মেইল বা ফোন নাম্বার সাবমিট করবে তার বিনিময়ে আপনাকে পেমেন্ট দেওয়া হবে।

সিপিএস (CPS):

সিপিএস (CPS) হলো কস্ট পার সেল (Cost Per Sale)। আপনি যদি কোন কোম্পানির কোন প্রোডাক্ট সেল করে দেন। যেমনঃ হেলথ লস মেডিসিন, সফটওয়্যার, ই-বুক ইত্যাদি যদি আপনি সেল করে দিতে পারেন, তার বিনিময়ে আপনাকে পেমেন্ট করা হবে।

তাছাড়া সিপিএ মার্কেটিং এ আপনি আরোও অনেক ধরনের কাজ পাবেন। যেমনঃ ডেটিং, ইমেইল সাবমিট, পিন সাবমিট, কোন কিছু ডাউনলোড, গেমিং, ফিনান্সিয়াল (ইনসিওরেন্স), ডেবিড/ক্রেডিট কার্ড সাবমিট সহ আপনি নানা ধরনের কাজ পেয়ে থাকবেন।

সিপিএ মার্কেটিং এর অফার বা কাজ গুলো কোথায় পাবেন?

সিপিএ মার্কেটিং এর জন্য অনেক মার্কেটপ্লেস রয়েছে। এর মদ্ধে কিছু হাই-কোয়ালিটি মার্কেটপ্লেস হলো ম্যাক্সবাউন্টি (Maxbounty), অ্যাডভারটাইন (Advertine), ক্লিকব্যাংক (Clickbank) ইত্যাদি। তবে বর্তমানে এইগুলোতে একাউন্ট করে, একাউন্ট অ্যাপ্রুভাল পাওয়া অনেক কঠিন।

কিন্তু ভয় পাবেন না! আমি আপনাদের কিছু মার্কেটপ্লেস শেয়ার করছি, যা থেকে সহজেই আপনি একাউন্ট অ্যাপ্রুভ করিয়ে নিতে পারবেন।

মার্কেটপ্লেসগুলো হলোঃ

  • অ্যাডওয়ার্কমিডিয়া (Adworkmedia)
  • অ্যাড৪ডেট (Ad4date)
  • সিপিএলিড (CpaLead)
  • সিপিএগ্রিপ (Cpagrip)

উপরের মার্কেটপ্লেসগুলো থেকে আপনি খুব সহজেই একাউন্ট করে অ্যাপ্রুভ করিয়ে নিতে পারবেন। নিচে মার্কেটপ্লেসগুলোর সংক্ষিপ্ত বর্ণনা দেওয়া হল।

অ্যাডওয়ার্ক মিডিয়া (Adworkmedia):

এইখানে একাউন্ট করে আপনি আপনি প্রায় সকল ধরনের অফার পেয়ে থাকবেন। সিপিসি, সিপিএল, সিপিএস সহ ইমেইল সাবমিট, পিন সাবমিট এর অনেক অফার পাবেন। কোন ধরনের ডেটিং অফার পাবেন না।

  • রেজিস্ট্রেশন করুনঃ Adworkmedia

সিপিএ লিড (CpaLead):

সিপিএলিড (CpaLead)-এ একাউন্ট করার সাথে সাথেই আপনার একাউন্ট একটিভ হয়ে যাবে। এইখানেও আপনি সিপিসি, সিপিএল, সিপিএস, ইমেইল সাবমিট, পিন সাবমিট এর অনেক অফার পাবেন। কিন্তু কোন ধরনের ডেটিং অফার পাবেন না।

  • রেজিস্ট্রেশন করুনঃ CPALead

সিপিএ গ্রিপ (Cpagrip):

সিপিএগ্রিপ (Cpagrip)-এ ও একাউন্ট করা সাথে সাথে অ্যাপ্রুভাল পাবেন। অ্যাডওয়ার্কমিডিয়া (Adworkmedia) ও সিপিএলিড (CpaLead) এর মতো এখানেও সিপিসি, সিপিএল, সিপিএস ইমেইল সাবমিট, পিন সাবমিট এর অনেক অফার পাবেন। কিন্তু কোন ধরনের ডেটিং অফার পাবেন না।

  • রেজিস্ট্রেশন করুনঃ CpaGrip

অ্যাড৪ ডেট (Ad4date):

অ্যাড৪ডেট (Ad4date)-এ একাউন্ট করেই একাউন্ট অ্যাপ্রুভাল পাবেন। এবং এখানে সিপিসি, সিপিএল, সিপিএস সহ ইমেইল সাবমিট, পিন সাবমিট এর অফারগুলো পাবেন। এর সাথে আপনি নানা ধরনের ডেটিং অফারও পাবেন।

  • রেজিস্ট্রেশন করুনঃ Ad4date

এইসব সাইটে একাউন্ট করার পর আপনি ড্যাসবোর্ড থেকে আপনার পছন্দের অফার বাছাই করে নিতে পারবেন এবং অফার সম্পর্কে সকল তথ্য জানতে পারবেন।

নতুনদের জন্য উপরের সিপিএ সাইটগুলোতে রেজিস্ট্রেশন করার পদ্ধতি

উপরে দেয়া সিপিএ মার্কেটপ্লেসগুলোতে রেজিস্ট্রেশন করা খুবই সহজ এবং বিনামূল্যে করতে পারবেন। সুতরাং আপনার ইচ্ছা মতো যেকোনোটিতে রেজিস্ট্রেশন করুন।

তবে উপরে দেয়া সিপিএ নেটওয়ার্কগুলো বাদে অন্য কোন নেটওয়ার্কে করতে চাইলে আগেই কিছু বিষয় দেখে নিন। যেমনঃ

১. বাংলাদেশ থেকে রেজিস্ট্রেশন করা যায় কিনা?

২. পেমেন্ট তোলার মাদ্ধম গুলো ও বাংলাদেশে পেমেন্ট তোলা যাবে কিনা?

৩. কমিশন কত দিবে?

৪. পেমেন্ট তোলার জন্য সর্বনিম্ন কত কমিশন আয় করতে হবে?

৫. কত দিন পর পর পেমেন্ট তোলা যাবে?

আবার আপনি সিপিএ মার্কেটিং-এ নতুন হলে ‘oDigger’ এর মতো সাইট গুলোতে রিভিও পড়ে নিজেই সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন কোনটিতে আপনার রেজিস্ট্রেশন করা উচিত।

সিপিএ সাইটগুলোতে রেজিস্ট্রেশন করতে আপনার দরকার

  • একটি অ্যাক্টিভ ইমেইল আইডি যাতে করে ইমেইল গুলো চেক করতে পারেন
  • সিপিএ সাইটে সাইনআপ করার সময় জানতে চাওয়া হবে যে আপনি লিড জেনারেট করার জন্য কিভাবে আপনি অফারগুলো প্রচার বা প্রমোট করবেন। সেখানে নিচে দেয়া এই লেখাটি কপি-পেস্ট করে দিতে পারেন অথবা চাইলে আপনি নিজেই লিখে দিতে পারেন।

“I will promote my offers to generate leads by sharing on Websites, Youtube channels, PPC (Google and Facebook) and promoting on social medias. And also I am planning to create my own website for targeted niche and generate organic traffic by doing SEO. I am planning to spend 6 dedicate hours daily to achive my goals. I hope by this strategy I will start earning from your network soon.”

  • এর পরে সেখানে যদি আপনি দেখেন যে ইনসেনটিভ ট্রাফিক (Incentive Traffic) এর কোন কথা বলা আছে তাহলে অবশ্যই সেখানে উত্তর “No” দিবেন। এতে করে আপনি ওদের কনফার্ম করছেন যে আপনি আপনার পরিচিত মানুষদের দিয়ে ট্রাফিক এনে লিড জেনারেট করবেন না।
  • আপনাকে ওয়েবসাইটের লিঙ্ক দিতে হতে পারে। সেখানে যদি আপনার নিজের কোন ওয়েবসাইট থেকে থাকে সেই লিঙ্ক দিতে পারেন আর না থাকলে youtube.com দিয়ে দিন।

নতুনরা কিভাবে আপনার অফার এনালাইসিস সিলেক্ট করবেন?

অনেক রকম ভাবে অফারগুলো এনালাইসিস করা যায়। এর মদ্ধে সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি হল আপনার নেটওয়ার্ক এর ড্যাশবোর্ড এর লিস্ট থেকে সুবিধামত অফার সিলেক্ট করা। আর এছাড়া Affpaying এবং Offervault এর মতো সাইতগুলো থেকে  বিস্তারিত জেনে নেওয়া।

সিপিএ অফারগুলো কিভাবে প্রমোট করে ইনকাম করবেন?

আপনি আপনার একাউন্টের ড্যাশবোর্ড থেকে পছন্দমত অফার সিলেক্ট করে নিন। অফার বাছাই এর পর মূল কাজ হলো অফার প্রমোট করা বা ইনকাম করা। আসুন ইনকাম কিভাবে হবে জেনে নেই। ধরুন, আপনি কম্পিউটার নিয়ে কাজ করতে চান। সেক্ষেত্রে আপনি তাহলে কম্পিউটার সম্পর্কিত অফারগুলো বাছাই করছেন। এরপর কম্পিউটার সম্পর্কিত ওয়েবসাইট, ফেসবুক গ্রুপ ও অন্যান্য জায়গায় অফারের লিংকগুলো প্রোমট বা শেয়ার করবেন।

সিপিএ মার্কেটিং এর অফার আপনি দুইটি মেথডে প্রমোট করতে পারবেন।

১. ফ্রি মেথড (Free Method)

২. পেইড মেথড (Paid Method)

আমি দুইটা মেথড নিয়েই আলোচনা করবো। ধৈর্য্য নিয়ে শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন।

ফ্রি মেথডঃ

আপনি যেহেতু আজ প্রথম ইনকাম করতে এসেছেন আমি পরামর্শ দিব আপনি ফ্রি মেথডেই ধৈর্য্য সহকারে কাজ করতে থাকুন, ইনশাআল্লাহ আপনি সফল হবেন।

সিপিএ মার্কেটিং-এ ফ্রি মেথড কী?

ফ্রি মানে হলো যেখানে টাকার কোন প্রয়োজন নাই। তবে পরিশ্রমের প্রয়োজন রয়েছে অনেক। আপনি কোন প্রকার টাকা খরচ না করেই আপনার অফার প্রমোট করার সিস্টেমই হলো ফ্রি মেথড।

ফ্রি মেথডে কিভাবে সিপিএ মার্কেটিং করবেন?

ফ্রি মেথডে আপনি অনেক ভাবেই অফার প্রমোট করতে পারবেন। যেমনঃ ইমেইল মার্কেটিং, ওয়েবসাইট মার্কেটিং, কন্টেন্ট মার্কেটিং, এসইও এবং সোশাল মিডিয়া মার্কেটিং।

ইমেইল মার্কেটিং:

আপনি ইমেইল কালেক্ট করে আপনার সিপিএ-এর অফার আপনি আপনার কাঙ্ক্ষিত ট্রাফিক এর কাছে প্রমোট করতে পারবেন।

ওয়েবসাইট মার্কেটিং:

আপনার যদি নিজস্ব কোন ওয়েবসাইট থাকে তাহলে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনার সিপিএ-এর অফার প্রমোট করতে পারবেন।

কন্টেন্ট মার্কেটিং:

আপনি যদি একজন কন্টেন্ট রাইটার হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনি আপনার কন্টেন্ট এর মাধ্যমে আপনার অফার নিশ অনুযায়ী কন্টেন্টের দ্বারা প্রমোট করতে পারবেন।

সোশাল মিডিয়া মার্কেটিং (Social Media Marketing):

আপনি সিপিএ মার্কেটিং করবেন কিন্তু আপনি সোশাল মিডিয়াতে একটিভিটি একবারের কম তা হলে আপনি ইনকাম করতে পারবেন না। একজন আদর্শ মার্কেটার সবার আগে সোশাল মিডিয়াতে তার প্রেজেন্স মজবুত করে থাকে। যাতে তাকে সবাই চিনে, জানে সে একজন মার্কেটার।

আপনি যদি সোসাইল মিডিয়াতে একটিভ থাকেন তাহলে আপনি খুব সহজেই আপনার কাঙ্ক্ষিত লিড সংগ্রহ করতে পারবেন। ফেসবুক, টুইটার, ইউটিউব, পিন্টারেস্ট, ইন্সটাগ্রাম, রেডিট ইত্যাদি সোশাল মিডিয়ার মাধমে আপনি আপনার অফার প্রমোট করতে পারবেন।

পেইড মেথডঃ

আপনি সিপিএ মার্কেটিং করবেন, মার্কেটপ্লেসে আসছেন, স্বাগতম। আপনি শুরুতেই চাচ্ছেন ইনকাম? তাহলে আপনার জন্যই পেইড মেথড।

সিপিএ মার্কেটিং-এ পেইড মেথড কি?

পেইড মেথড হলো আপনি টাকা দিয়ে লিড সংগ্রহ করা। টাকা দিয়ে অফার প্রমোট করাই হলো পেইড মেথড।

কিভাবে পেইড মেথডে সিপিএ মার্কেটিং করবেন?

ফেসবুক পেইড অ্যাড ক্যাম্পেইন (Facebook paid Ad Campaign), গুগল অ্যাডওয়ার্ডস (Google Adword)-এ ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে আপনি পেইড মেথড ব্যাবহার করতে পারবেন। পেইড মেথডের মাধ্যমে আপনি আপনার টার্গেটেড ট্রাফিকের কাছে আপনার অফার প্রমোট করে সহজেই লিড সংগ্রহ করতে পারবেন। এতে খুব দ্রুত বেশি আয় করা যায় এবং কষ্টও কম।

পেমেন্ট মেথডঃ

সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে জানলেন, কাজ কিভাবে করে, কিভাবে ইনকাম করে সব শিখলেন। ইনকাম ও করলেন। কিন্তু টাকা পকেটে আনতে পারলেন না। তাহলে এই কাজের কি মূল্য রইলো। আসুন দেখি সিপিএ মার্কেটপ্লেস থেকে কিভাবে পেমেন্ট তুলতে পারবেন।

সিপিএ মার্কেটপ্লেস এর প্রায় সকল সাইটই ব্যাংক এর মাধ্যমে পেমেন্ট করে থাকে, তাছাড়া আপনি পেওনিওয়র (Payoneer), পেপাল (Paypal), ওয়েবমানি (Webmoney) ইত্যাদি এর মাধ্যমে আপনার অর্জিত ডলার পেমেন্ট নিতে পারবেন।

নতুনদের জন্য সাবধানতাঃ

সিপিএ মার্কেটিং-এ সফল হতে দরকার প্রচণ্ড ধৈর্য ও সততা। এই ২টি ছাড়া যদি সহজেই ইনকামের আশায় এইখানে আসেন তাহলে কখনই ইনকাম করতে পারবেন না। শুধু মাত্র অন্যের আয় করা ডলারই দেখে যেতে হবে। সুতরাং ধৈর্য ধরে কাজ করতে থাকুন সফলতা আসবেই। প্রথমে আয় কম হলেও পরে ধিরে ধিরে বারতে থাকবে। এছারা পরিচিতদের মদ্ধে কোন সিপিএ মার্কেটিং এক্সপার্ট থাকলে শুরুতে তাদের সাথেও কাজ করতে পারবেন এতে করে আরও ভাল ভাবে কাজগুলো শিখতে পারবেন।

নতুনদের জন্য সতর্কতাঃ

কোন ভাবেই আপনার ড্যাশবোর্ড থেকে নেওয়া অফার গুলো নিজে নিজেই পুরন করবেন না। আপনি যে পদ্ধতেই করেন না কেন সিপিএ কোম্পানিগুলো ঠিকই ধরে ফেলবে আর আপনার একাউন্ট এমনকি আপনার আইপি আজীবনের জন্য ব্যান করে দিবে। এতে করে আপনি আপনার ঐ কম্পিউটার বা ল্যাপটপ থেকে সেই সিপিএ নেটওয়ার্কে আর কোন একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন না।

শেষ কথাঃ

আশা করি আমাদের এই আর্টিকেল থেকে আপনি জেনে গেছেন যে সিপিএ মার্কেটিং কি, কিভাবে কাজ করে ও সিপিএ মার্কেটিং কৌশলগুলো। তাহলে আর দেরি কিসের? এখনি কাজ শুরু করেন দিন। সম্পূর্ণ একাগ্রতা ও ধৈর্য নিয়ে কাজ করলে আপনি অবশ্যই সফল হবেন। আপনার জন্য শুভকামনা।

সিপিএ মার্কেটিং নিয়ে বহুল জিজ্ঞাসিত কিছু প্রশ্নের উত্তরঃ

সিপিএ মার্কেটিং শিখবো কিভাবে?

আপনি অনেক ভাবে সিপিএ মার্কেটিং শিখতে পারেন, যেমনঃ গুগল ও ইউটিউব দেখে পড়াশুনা করে, অনলাইনে বা কোন ট্রেনিং সেন্টারে সিপিএ মার্কেটিং কোর্স করে আর সিপিএ মার্কেটিং করতে পারে এমন কারো কাছ থেকে জেনে না তার সাথে কাজ করেও আপনি সহজেই শিখে নিতে পারবেন।

সিপিএ মার্কেটিং কি হালাল নাকি হারাম?

সিপিএ মার্কেটিং হারাম না। শরীয়া মতে নিজে শ্রম দিয়ে আয় করাতে কোনো সমস্যা নেই। তবে যে পণ্য বা সেবার অ্যাডটি দিবেন সেইটা যদি ইসলামিক পন্থায় বা শরীয়াসম্মত না হয় তাহলে হারাম। যেমনঃ অ্যাডাল্ট অ্যাড, প্রতারণা, সুদ পাওয়া বা দেওয়া যাবে এমন অ্যাড বা অন্য যে কোনো অ্যাড যেটা ইসলাম সর্মথন করে না এই রকম অ্যাড নিয়ে কাজ করে ইনকাম করলে তখন সেটি হারাম হিসাবে গণ্য হবে। এবং এর সাথে মাথায় রাখতে হবে শুধু পণ্য বা সেবা না প্রচারণা ও বিক্রয় পদ্ধতিও যেন শরীয়াসম্মত হয়। সুতরাং হালাল বা হারাম হওয়াটা নির্ভর করছে আপনি ইনকাম করার জন্য কোন ধরনের অ্যাড ব্যাবহার করছেন সেটির উপর।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button