ডিজিটাল মার্কেটিং

ডিজিটাল মার্কেটিং কোন সেক্টর সবচেয়ে চাহিদা বেশি থাকে?

ডিজিটাল মার্কেটিং হল ১০০ শতাংশ ফলাফল ভিত্তিক একটা মার্কেটিং পদ্ধতি. এই সেক্টরটি বেশ লাভজনক একটি সেক্টর. আমার ধারনা মতে অন্য যে কয়টি সেক্টর আছে তার থেকে সবথেকে বেশি রিলাবেল সেক্টর হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং. এবং আগামী পাঁচ বছরে ডিজিটাল মার্কেটিং এর ভবিষ্যৎ কেমন তা নিয়ে একটা পোস্ট করেছি পড়ে দেখতে পারেন.

কারণ যদি আমরা লক্ষ্য করি গ্রাফিক্স ডিজাইন এর উপর তাদের অল্টারনেটিভ হিসেবে বাজারে কেনভার প্রচলন চলছে. এবং যারা একেবারেই নতুন বা ক্লাইন্ট তার ছোট একটি কাজ গ্রাফিক্স ডিজাইন করা লাগবে সেটি হয়তো সে কেনভার মাধ্যমে সহজে করে নিতে পারেন.
সেই ক্ষেত্রে যারা অভিজ্ঞ বা মোটামুটি যারা কাজ শিখছে তারা কাজ থেকে চ্যুত হয়ে যাচ্ছে.

আবার আরেকটি উদাহরণ যদি দেই সেটা হচ্ছে ওয়েব ডিজাইন ডেভেলপমেন্ট. এই সেক্টরে অল্টারনেটি বর্তমানে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেছে. সেটা হচ্ছে চ্যাট গিভিটি অথবা এই ধরনের ওপেন এ আই প্রজেক্ট যেগুলো দ্বারা খুব সহজেই পেয়ে যাচ্ছে এবং প্রজেক্টে ব্যবহার করতে পারছেন.
কিন্তু এটা অতটা সহজে চাকরি চ্যুত হবে না কারণ হচ্ছে . এখানে যদি এআই অথবা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স দ্বারা কোন প্রোগ্রাম করানো হয় সেটার জন্য অবশ্যই তাকে প্রোগ্রামিং জানতে হবে.

কারণ আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স সব সময় সঠিক কোড আপনাকে দিবে না. আবার সে আপনাকে একটি থেকে 90% কোড দিবে কিন্তু টেন পার্সেন্ট কিছু প্রবলেম করে রাখবে সে টেন পার্সেন্ট প্রবলেম আপনাকে নিজের ম্যানুয়ালি ফিক্সড করে নিতে হবে.

তারপর বলা যায় না আগামী দিনগুলোতে এই সেক্টরটি কতটুকু প্রভাব বিস্তার করতে পারবে এই আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স.

আচ্ছা এইবার মূল প্রশ্নের উত্তরে ফিরে আসি সেটা হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কোন সেক্টরে সবচেয়ে বেশি চাহিদা থাকে.

ডিজিটাল মার্কেটিং কোন সেক্টর সবচেয়ে চাহিদা বেশি থাকে?
ডিজিটাল মার্কেটিং কোন সেক্টর সবচেয়ে চাহিদা বেশি থাকে?

আমি ধরে নিলাম আপনার একটা ডিজিটাল মার্কেটিং এজেন্সি আছে. এখন আপনি আমার একটা এজেন্সির সাথে কাজ শুরু করলেন বা কন্টাক্ট নিলেন. তিন মাস হয়ে গেল আপনি হয়তো কাঙ্খিত ফলাফল আমাকে এনে দিতে পারছেন না. এই কারণে কিন্তু আপনি দুইটা জিনিস হারাচ্ছেন সেটা হচ্ছে আপনি আপনার হারাচ্ছেন, আর সেই ক্লায়েন্টের হয়ে যে সমস্ত ক্লায়েন্ট আসতো যেগুলা আপনি পরবর্তী প্রজেক্ট করতেন সেই লাইনগুলো হারাবেন.

এখন অল্প টাকায় যদি বিনামূল্যে অনেক অনেক কাস্টমার আছে সেটাকে বলা হয় অর্গানিক ট্রাফিক. এর চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলেছে এবং ভবিষ্যতে চাহিদা বাড়বে.

এই সেক্টরে কাজের অনেক চ্যালেঞ্জিং ব্যাপার স্যাপার রয়েছে. যদি এই জায়গায় সফলভাবে কাজ করতে পারেন তাহলে অনেক কিছু করতে পারবেন.

এবং সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বেশ জনপ্রিয় সেই সাথে সাথে জনপ্রিয়. ডিজিটাল মার্কেটিং এর তিনটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আছে. আপনি এখন যে সেক্টরে কাজ করেন না কেন আপনাকে মূলত তিনটা বিষয়ে অবশ্যই অবশ্যই জানতে হবে . অন্যথায় আপনি এই ডিজিটাল মার্কেটিং সেক্টরে কোন কিছুই করতে পারবেন না. তাই আপনাকে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত এই তিনটা বিষয় সাথেই কাজ করে যেতে হবে.

আপনাকে মাথায় রাখতে হবে কম টাকায় কিভাবে অডিয়েন্স আনা যায়
কিভাবে সে কাস্টমারের সাথে আরো পরবর্তী ডিল করা যায়
কিভাবে কাস্টমার গুলো দীর্ঘ সময় ধরে রাখা যায়
যদি ক্যারিয়ার তৈরি করার কথা ভাবেন তাহলে অবশ্যই অবশ্যই এই তিনটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে না হলে আপনি কোন কাজ করতে পারবেন না তার জন্য লেগে থাকতে হবে.

আর আপনি যদি শখের বসে কোন একটা ভিডিও দেখে বা একটা পোস্ট করে সেটার উপরে যদি ইন্টারেস্ট জাগে তাহলে কোন কিছুই হবে না. এটা ভাবতে হবে যে আপনার সেই কাজটার উপর এন্টারটেইনমেন্ট পাচ্ছেন কিনা. ডিজিটাল মার্কেটিং কোন সেক্টর সবচেয়ে চাহিদা বেশি থাকে

এক নাম্বার কম টাকায় কিভাবে অডিয়েন্স আনা যায় এ ব্যাপারে আলোচনা করছি:
বর্তমানে অনলাইনে প্রচারিত অনেক সার্চ ইঞ্জিন রয়েছে. তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে গুগল বিং ইয়ানডেক্স আরো অনেক. এ সকল আর্জেন্টিনা আমাদের রয়েছে অনেক অনেক কম্পিটিটার অর্থাৎ আমরা যে টপিক নিয়ে কাজ করছি সেই টপিকে অনেকে লেখালেখি করছে এবং সেখানে তাদের প্রোডাক্ট সেল করছে.

এই প্রোডাক্ট সেল করার জন্য বিভিন্ন কোম্পানি তারা বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে এর জন্য প্রচুর পরিমাণে টাকা সেই সার্চ ইঞ্জিনকে দিতে হয়. এখানে কিভাবে আমরা কম টাকায় োনরকম বিজ্ঞাপন ছাড়াই সার্চ ইঞ্জিনিয়ার র‍্যাংকিংয়ে আনতে পারি সেটাই হচ্ছে প্রথম ধাপ যে কম টাকায় কিভাবে অডিয়েন্স আনতে পারি.

কিভাবে কাস্টমারের সাথে পরবর্তী ডিল করতে পারি ?

ডিজিটাল মার্কেটিং কোন সেক্টর সবচেয়ে চাহিদা বেশি থাকে?
ডিজিটাল মার্কেটিং কোন সেক্টর সবচেয়ে চাহিদা বেশি থাকে?

কাস্টমারের সাথে ডিল করা একটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ অংশ. আমরা যে কোন কাজ পাওয়ার সময় আমার ক্লাইন্টের সাথে তো বা কাস্টমারের সাথে বিভিন্ন শলা কৌশল দিয়ে আমার পণ্যটি বিক্রয় করার চেষ্টা করি. এই দক্ষতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারণ আমার সেলস বৃদ্ধি করা প্রয়োজন.

আপনি আপনার ক্লায়েন্টকে আপনার কথা দিয়ে যতটুকু আকর্ষণ করতে পারবেন তাতে করে আপনার কাজ পাওয়ার বা অন্য সেল করার পসিবিলিটি বেড়ে যাবে.

যখন আপনার প্রতি বিশ্বাস অর্জন করবে এবং আপনাকে কাজে দিবে আপনি সেই কাজটা সুন্দর করে সময় নিয়ে নিজের মনে করে কাজটি করে দিলে সে অবশ্যই অবশ্যই অনেক খুশি হবে.

যখন সে আপনার বর্তমান কাজটা খুবই পছন্দ করবে দেখবেন পরবর্তী কাজের জন্য আপনাকে আগাম জানিয়ে যাবে যে পরবর্তী যে কয়টি প্রজেক্ট আসবে আমি আপনাকে দিয়েই করানোর চেষ্টা করব.

কিভাবে কাস্টমারকে দীর্ঘ সময় ধরে রাখবো ?
কাস্টমার ধরে রাখার ব্যবসার উপার্জন অথবা সফলতার একটা গুরুত্বপূর্ণ ধাপ. আপনার সার্ভিস অথবা পণ্য যদি মানসম্মত হয় অবশ্যই কাস্টমার দীর্ঘ সময় আপনার সাথে থাকবে.

কিন্তু আপনার অন্য যদি বিক্রয় করার সময় খুব চটকদার বিজ্ঞাপন এবং চটকদার মোড়কের মাধ্যমে ক্লাইন্টকে আকৃষ্ট করার চেষ্টা করা হয় এবং পরবর্তীতে ক্লায়েন্ট যখন সেই পণ্যটি ব্যবহার করতে গিয়ে কোন রকম বিচ্যুতি হয় সে কিন্তু আর কখনোই আপনার সাথে ডিল করবে না.

এই ধাপে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হচ্ছে যে ক্লাইন্টকে ধরে রাখা তাহলে আমার অন্য অথবা সেবা যেন মানসম্মত হয়. ডিজিটাল মার্কেটিং কোন সেক্টর সবচেয়ে চাহিদা বেশি থাকে

আর সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারটি হচ্ছে আপনি যে কথাটি বলবেন সেটি যেন আপনার সেবা এবং পণ্যের ভেতর থাকে.

আপনি যদি পণ্য বিক্রয় করে থাকেন তাহলে আপনার কিছু লিমিটেড কাস্টমার থাকলে আপনার তা দিয়ে মোটামুটি ভালো পরিমাণ উপার্জন আসবে.

আর আপনি যদি কোন সার্ভিস ফেল করে থাকেন অথবা ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেস এ কাজ করে থাকেন সেখানে ধরুন আপনি ১৫ থেকে ২০ টা বা ৩০ টা ক্লায়েন্টের সাথে কাজ করেছেন. আপনি চেষ্টা করবেন দীর্ঘ সময় কাজ করার জন্য রেখে দেওয়া.

দিন শেষে পাঁচ থেকে ছয়টি ক্লাইন্ট চলে আসে কিন্তু আপনাদের সার্ভিস টা যেন অবশ্যই ঠিকঠাক থাকে.

এই কয়েকটি বিষয়ে আলোচনা করে আমরা বুঝতে পারলাম যে ডিজিটাল মার্কেটিং এর মোটামুটি সব সেক্টরের চাহিদা আছে শুধুমাত্র ক্লাইন্টকে ভালো সার্ভিস দেওয়া এবং ক্লায়েন্টের সাথে দীর্ঘদিন যাবত কাজ করা এই ব্যাপারটা যদি মাথায় থাকে তাহলে যেকোনো যে কোন কাজে বা সেক্টরে এত ভালো করতে পারবে. ডিজিটাল মার্কেটিং কোন সেক্টর সবচেয়ে চাহিদা বেশি থাকে

সর্বোপরি কিছু কথা দিয়ে আমার আজকের আর্টিকেল শেষ করব. সেটা হচ্ছে আমি উপরে দুই লাইন বা দুইটা ব্যাপারে কথা বলেছি সেটা হচ্ছে গ্রাফিক্স ডিজাইন আরেকটি হচ্ছে ওয়েবসাইট ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট. এগুলোর অল্টারনেটিভ বর্তমানে বাজারে চলে আসলেও আপনি কিন্তু ডিজিটাল মার্কেটিং এর অল্টারনেটিভ সহজে খুঁজে পাবেন না.

কারণ এখানে বেশ কিছু ব্যাপার আছে যেগুলো ম্যানুয়ালি করতে হয় যেমন এসইও এর কিওয়ার্ড রিসার্চ যেটা ম্যানুয়ালি না করলে ভালো রেজাল্ট পাবেন না. দ্বিতীয়ত হচ্ছে যখন আপনি কন্টেন্ট লিখবেন আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স দিয়ে কন্টেন্ট লেখা আর নিজের হাতে তৈরি করে লেখা ভিতরে অনেক পার্থক্য থাকে.
তো এই জিনিসটার অল্টারনেটিভ যদিও এসে থাকে এটা কিন্তু বেশি দিনের জন্য কাজ করবে না. এটা মানসম্মত কনটেন্ট সরবরাহ করা হয় না তো কন্টেন্টের জন্য যদি আপনি মনে করেন যে ডিজিটাল মার্কেটিং এর এই স্থানে অলরেডি একটা অল্টারনেটিভ চলে এসেছে তাহলে আপনার ধারণা ভুল.

যেহেতু এখানে সব কাজই নিজে হাতে করতে হচ্ছে সে তো আপনি ধরে নেন যে এর ভবিষ্যৎ টা মোটামুটি ভালো এবং সব কথা শেষ কথা হচ্ছে আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং হিসেবে একজন ক্যারিয়ার স্পেশালিস্ট হতে পারবেন

আশা করি আমার এই কনটেন্ট আপনার ভালো লেগেছে যদি ভালো লেগে থাকে অবশ্যই আমাদের সাথে থাকার চেষ্টা করবেন সাথে থাকলে আমরা আর উৎসাহ পাই এ ধরনের কনটেন্ট নতুন নতুন ভাবে তৈরি করে দেওয়ার জন্য.

তাহলে ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন ধন্যবাদ সবাইকে  ডিজিটাল মার্কেটিং কোন সেক্টর সবচেয়ে চাহিদা বেশি থাকে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site is protected by reCAPTCHA and the Google Privacy Policy and Terms of Service apply.

Back to top button