অনলাইনে আয় করুনটিপস এন্ড ট্রিকসফরেক্স ট্রেডিং

ফরেক্স ট্রেডিং কি, ফরেক্স ট্রেডিং এর সুবিধা ও অসুবিধা 

বর্তমান বিশ্বে জনপ্রিয় একটি পেশা হলো ট্রেডিং। বিশ্বের বিশাল একটা পরিমাণ অর্থের আদান প্রদান হয় এই ট্রেডিংয়ের মাধ্যমে। অবশ্য বলতে গেলে, অনেকাংশে ট্রেডিংয়ের উপর অর্থনীতি ভালো খারাপ হওয়ার একটা দ্বায়ভার থাকে। সোজাভাবে বলতে গেলে, ট্রেডিং হলো একটি অর্থনৈতিক ধারণা, যার মাধ্যমে এমন কিছু জিনিস কিংবা পরিষেবা কেনা বেচা করা হয়, যার উপর একটা অর্থনীতির বড় প্রভাব থাকে। আর যারা ট্রেড করে তাদের বলা হয়, ট্রেডার। একজন ট্রেডার স্টক মার্কেটে বিভিন্ন ধরনের সম্পদ কেনা বেচার মাধ্যমে লাভ করে থাকেন। একজন ট্রেডার কোনো একটি ফিন্যান্সিয়াল কোম্পানির হয়ে কাজ করতে পারেন, অথবা তিনি নিজে একটা ফ্রিল্যান্স ইনভেস্টর হিসেবেও কাজ করতে পারেন। একজন ট্রেডারের মূল কাজ হলো স্টক মার্কেটে ট্রেড হওয়া প্রতিটা ফিন্যান্সিয়াল ইন্সট্রুমেন্ট, ডেরিভেটিভ মার্কেট, এবং কমোডিটি এক্সচেঞ্জে শেয়ার কেনা বেচা করা। তাকে সর্বদা মার্কেট বুঝতে হয়, এবং নিজের মার্কেট অনুসন্ধান দ্বারা মার্কেটে প্রবেশ করতে হয়।

ট্রেডিং নিয়ে যাদের আগ্রহ, তাদের প্রত্যেকেই কমবেশি ফরেক্স ট্রেডিংয়ের সাথে পরিচিত। সহজ কথায় বলতে গেলে, ট্রেডিংয়ের জগতে ফরেক্স বিশাল একটি জায়গা দখল করে আছে। আমরা সকলেই জানি, অর্থনীতি বিষয়টি অনেক বেশি জটিল একটা বিষয়। অনেকেই তার সহজ মাথায় অর্থনীতির এই জটিলতা নিতে পারেনা। যার কারনে, বাজারে চায়ের দোকানেও কেউ অর্থনীতি নিয়ে আলোচনা করলে অনেকে তা এড়িয়ে যেতে চায়। আর ট্রেডিংয়ে যেহেতু অর্থনীতি নিয়ে নিজের ব্যক্তিগত অনুসন্ধান করতে হয়, সেহেতু এই বিষয়টি সম্পর্কে জানার এবং বোঝার অনেক কিছুই আছে। আর তাই, আজ আমরা ফরেক্স টেডিং এবং এর সুবিধা অসুবিধা সহ আরো বেশ কিছু বিষয় জানবো।

ফরেক্স ট্রেডিং কি?

ফরেক্স ট্রেডিং কে যদি ভাঙ্গা হয়, তাহলে দুটি শব্দ পাওয়া যায়। একটি হলো ফরেক্স, আর অন্যটি হলো ট্রেডিং। এই ফরেক্স কে যদি আমরা আবারো ভাঙি, তাহলে পাই, ফরেন এক্সচেঞ্জ (Foreign Exchange)। মানে বৈদেশিক লেনদেন। আর এই লেনদেনটা হয় মূলত বৈদেশিক মুদ্রার লেনদেন। আর এই লেনদেনের প্রক্রিয়াটা হলো একটি বৈদেশিক মুদ্রাকে বিভিন্ন কারনে অন্য একটি মুদ্রাতে রুপান্তরিত করা। এখন এই কারন গুলো হতে পারে কোনো পণ্য, ব্যবসা, বানিজ্য, পর্যটন বা অন্য যেকোনো কারন। 

ব্যাংক ফর ইন্টারন্যাশনাল সেটেলমেন্টস (জাতীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলোর জন্য একটি গ্লোবাল ব্যাংক) থেকে ২০১৯ সালের ত্রিবার্ষিক রিপোর্ট অনুসারে জানা যায়, ২০১৯ সালে ফরেক্সের জন্য দৈনিক ট্রেডিং ভলিউম ৬ দশমিক ৬ ট্রিলিয়ন ডলার পর্যন্ত পৌঁছেছে। তাহলে বুঝুন একবার, ফরেক্স ট্রেডিং মার্কেটের কত বিশাল একটি জায়গা দখল করে রেখেছে। ফরেক্স মার্কেট বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফিন্যান্সিয়াল মার্কেট।

যেকোনো মুদ্রার ট্রেডিং করাটা একই সাথে ঝুঁকিপূর্ণ এবং বিপদজনকও বটে। এটি খুব জটিল একটি প্রক্রিয়া। কারন এই সিস্টেমটিতে অসংখ্য ট্রেড চলমান থাকে, যার কারনে কারেন্সি দুর্বৃত্তদের জন্যে কোনো একটি নির্দিষ্ট মুদ্রায় প্রভাব বিস্তার করা রীতিমতো কঠিন একটি কাজ। এই সিস্টেমটি আন্তঃব্যাংক লেনদেনের অ্যাক্সেস সহ বিনিয়োগকারীদের জন্য বাজারে স্বচ্ছতা তৈরি করতে সহায়তা করে।

খুচরা বিনিয়োগকারীদের হুট করেই ফরেক্স মার্কেটে প্রবেশ করা উচিত না। তাদের উচিত ফরেক্স মার্কেট সম্পর্কে ভালোভাবে বোঝা, এবং তারপর আরো গভীর গবেষণার পর ঠিক করা যে, সে কোন ফরেক্স ব্রোকারের সাথে চুক্তিবদ্ধ হবে। এবং চুক্তিবদ্ধ হওয়ার আগে এটা মাথায় রাখা যে, সে ট্রেডটি যুক্তরাষ্ট্র দ্বারা নিয়ন্ত্রিত নাকি যুক্তরাজ্য দ্বারা। ( বেশিরভাগ মার্কেটে এই দুটি দেশের প্রভাব বেশি থাকে।) নাকি এমন দেশ দ্বারা নিয়ন্ত্রিত যেখানে আইন এবং নিয়ম কানুন আরো সহজ। বাজারের সংকটের ক্ষেত্রে বা কোনো ব্যবসায়ী দেউলিয়া হয়ে গেলে কী ধরনের অ্যাকাউন্ট সুরক্ষা পাওয়া যায় তা খুঁজে বের করাটাও অনেক জরুরি।

ফরেক্স মার্কেট কি?

বৈদেশিক মুদ্রার বাজার হল যেখানে মুদ্রা লেনদেন করা হয়। এই বৈদেশিক মুদ্রাগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ, কারণ তারা আমাদের স্থানীয়ভাবে এবং সীমানা পেরিয়ে পণ্য এবং পরিষেবাগুলো কেনার অনুমতি দেয়। বৈদেশিক বাণিজ্য ও ব্যবসা পরিচালনার জন্য আন্তর্জাতিক মুদ্রা বিনিময় করা অতীব প্রয়োজন। 

ধরুন আপনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছেন। কিন্তু আপনার প্রয়োজন হলো, আপনি ফ্রান্স থেকে এক কেজি পনির কিনবেন। তাহলে হয় আপনাকে নাহয় আপনি যে কোম্পানির কাছ থেকে পনির কিনবেন তাকে ইউরোতে (EUR) পনিরের জন্য ফরাসি অর্থ প্রদান করতে হবে। এর মানে হল যে মার্কিন আমদানিকারককে ইউরোর জন্য মার্কিন ডলার (USD) এর সমতুল্য মূল্য বিনিময় করতে হবে।

ভ্রমণের ক্ষেত্রেও তাই। মিশরে একজন ফরাসি পর্যটক পিরামিড দেখার জন্য ইউরোতে অর্থ প্রদান করতে পারবে না কারণ এটি মিশরে স্থানীয়ভাবে স্বীকৃত কোনো মুদ্রা নয়। ফরাসি ওই পর্যটককে স্থানীয় মুদ্রার জন্য ইউরো বিনিময় করতে হবে, এই ক্ষেত্রে বর্তমান বিনিময় হারে মিশরীয় পাউন্ড তাকে সেখানে প্রদান করতে হবে।

এই আন্তর্জাতিক বাজারের একটি অনন্য দিক হল বৈদেশিক মুদ্রার জন্য কোন কেন্দ্রীয় বাজার নেই। বরং, কারেন্সি ট্রেডিং ইলেকট্রনিকভাবে ওভার দ্যা কাউন্টার (ওটিসি) এর মাধ্যমে পরিচালিত হয়, যার অর্থ হল সমস্ত লেনদেন বিশ্বব্যাপী ব্যবসায়ীদের মধ্যে কম্পিউটার নেটওয়ার্কের মাধ্যমে হয়, এখানে কোনো কেন্দ্রীয় বা সেন্ট্রালাইজড এক্সচেঞ্জ সিস্টেমের প্রভাব নেই। এই আন্তর্জাতিক বাজারটি দিনে ২৪ ঘন্টাই খোলা থাকে আর সপ্তাহে সাড়ে পাঁচ দিন। এবং এই মুদ্রা বা কারেন্সি গুলো বিশ্বব্যাপী ফ্রাঙ্কফুর্ট, হংকং, লন্ডন, নিউ ইয়র্ক, প্যারিস, সিঙ্গাপুর, সিডনি, টোকিও এবং জুরিখের প্রধান আর্থিক কেন্দ্রগুলিতে লেনদেন হয়, প্রতিটি দেশের স্থানীয় টাইমজোন মেনে। এর মানে হল যখন ইউএস ট্রেডিং ডে শেষ হয়, টোকিও এবং হংকং-এ ফরেক্স মার্কেট নতুন করে শুরু হয়। যেমন, বৈদেশিক মুদ্রার বাজার যে কোনো সময় অত্যন্ত সক্রিয় হতে পারে, মূল্য উদ্ধৃতি ক্রমাগত পরিবর্তিত হয়।

ফরেক্স ট্রেডিংয়ের সুবিধা

১. বিশ্বে প্রতিদিনের ট্রেডিং ভলিউমের পরিমাণ অনুযায়ী ফরেক্স মার্কেট বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফিন্যান্সিয়াল মার্কেট। এজন্যে এটি সব থেকে বেশি স্বচ্ছতাও প্রদান করে। এক সেকেন্ডেরও কম সময়ের মধ্যে মার্কেটের নিয়ম ও শর্ত সাপেক্ষে যেকোনো প্রধান একটি মুদ্রার জন্যে মার্কেটে প্রবেশ করা এবং বের হওয়াটা এটা সহজ করে দেয়। যার জন্যে ইনভেস্টর সহজেই মার্কেটে ঢুকতে এবং বের হতে পারে।

২. ফরেক্স মার্কেট দিনে ২৪ ঘন্টাই খোলা থাকে। এবং সপ্তাহে সাড়ে পাঁচদিন। প্রতিদিন অস্ট্রেলিয়ায় শুরু হয়ে শেষ হয় নিউইয়র্কে। হাতে পর্যাপ্ত সময় এবং কভারেজ থাকায় একজন ট্রেডার নিজের ক্ষতি পোষাতে কিংবা লাভ করার সময় পায়। প্রধান ফরেক্স মার্কেট সেন্টারগুলো হল ফ্রাঙ্কফুর্ট, হংকং, লন্ডন, নিউ ইয়র্ক, প্যারিস, সিঙ্গাপুর, সিডনি, টোকিও এবং জুরিখ।

৩. ফরেক্স ট্রেডিংয়ে লিভারেজের ব্যাপক ব্যবহারের কারনে আপনি অল্প পুঁজি দিয়ে ব্যবসা শুরু করতে পারবেন এবং আপনার লাভকে বহুগুণ করে নেওয়ার সুযোগ এখানে রয়েছে। 

৪.ফরেক্স ট্রেডিংয়ের অটোমেশন বা স্বয়ংক্রিয় সিস্টেম আপনার ট্রেডিং স্ট্র‍্যাটেজিকে খুব দ্রুত বাস্তবায়নের সুযোগ করে দেয়।

৫. দৈনিক অন্যান্য যত ট্রেডিং হলো, ফরেক্স ট্রেডিংও সাধারণত সেরকম নিয়ম কানুনই মেনে চলে। উলটো ফরেক্স ট্রেডিংয়ে অনেক কম পুঁজির মাধ্যমেও মার্কেটে প্রবেশ করা যায়। এবং অন্যান্য স্টক মার্কেটের থেকেও ফরেক্সে ট্রেড করা অনেক বেশি সহজ।

৬. সাধারণ স্টক অথবা বন্ড মার্কেটের চেয়েও ফরেক্স মার্কেট অনেক বেশি ডিসেন্ট্রালাইজড বা বিকেন্দ্রিত। এখানে এমন কোন কেন্দ্রীভূত বিনিময় নেই যা মুদ্রা বাণিজ্যের উপর আধিপত্য বিস্তার করবে এবং কোন কোম্পানি বা স্টক সম্পর্কে অভ্যন্তরীণ তথ্যের মাধ্যমে এখানে মার্কেট ম্যানিপুলেশনের সম্ভাবনাও কম।

ফরেক্স ট্রেডিংয়ের অসুবিধা

১. যদিও ফরেক্স মার্কেট বিশ্বের সবচেয়ে লিকুইড বা স্বচ্ছ অর্থনৈতিক বাজার, তাও ফরেক্স ট্রেডগুলি নিয়মিত বাজারের তুলনায় অনেক বেশি অস্থিতিশীল। 

২. অত্যধিক পরিমাণে লিভারেজ অনেক ডিলারকে বা ইনভেস্টরকে অপ্রত্যাশিতভাবে দেউলিয়া করে দেয়।

৩. ফরেক্স মার্কেটে ব্যাংক, ব্রোকার এবং ডিলাররা প্রচুর পরিমাণে লিভারেজের অনুমতি দেয়, যার অর্থ হল ট্রেডাররা তাদের নিজেদের অপেক্ষাকৃত অল্প টাকা দিয়ে বড় পজিশন নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। ১০০ অনুপাত ১ রেঞ্জের লিভারেজ ফরেক্সে অস্বাভাবিক কিছু নয়। একজন ব্যবসায়ীকে অবশ্যই লিভারেজের ব্যবহার এবং একটি অ্যাকাউন্টে লিভারেজ প্রবর্তিত ঝুঁকিগুলি বুঝতে হবে।

৪. সফলভাবে মুদ্রা ট্রেডিং করার জন্যে অর্থনীতির মৌলিক বিষয়গুলো এবং নির্দেশনাগুলো বোঝা খুবই জরুরি। এমন মৌলিক বিষয়গুলি উপলব্ধি করে একজন মুদ্রা ব্যবসায়ীকে বিভিন্ন দেশের অর্থনীতি এবং তাদের আন্তঃসংযোগ সম্পর্কে একটি বড়-চিত্র বোঝার প্রয়োজন হয় যা মুদ্রার মূল্যকে চালিত করে থাকে। এবং তারপর মার্কেটে তার ট্রেডিং পরিচালনা করতে হয়।

৫. ফরেক্স মার্কেটের বিকেন্দ্রীকৃত প্রকৃতির মানে হল যে এটি অন্যান্য আর্থিক বাজারের তুলনায় নিয়ন্ত্রণের কাছে কম দায়বদ্ধ। ফরেক্স মার্কেটে নিয়ন্ত্রণের ব্যাপ্তি এবং প্রকৃতি ট্রেডিং এর এখতিয়ারের উপর নির্ভর করে।

৬. ফরেক্স মার্কেটে এমন উপকরণের অভাব রয়েছে যা নিয়মিত আয় প্রদান করে, যেমন নিয়মিত লভ্যাংশ প্রদান, যা তাদের বিনিয়োগকারীদের কাছে আকর্ষণীয় করে তুলতে পারে যারা সূচকীয় রিটার্নে আগ্রহী নয়।

বাংলাদেশে কি ফরেক্স ট্রেডিং বৈধ?

ফরেন এক্সচেঞ্জ রেগুলেশন অ্যাক্ট ১৯৪৭ অনুযায়ী, বাংলাদেশে ফরেন এক্সচেঞ্জ বা বৈদেশিক মুদ্রার আদান প্রদান শুধুমাত্র বাংলাদেশ ব্যাংক দ্বারা অনুমোদিত ডিলার বা মানি চেঞ্জার দ্বারা করা যাবে। সোজা ভাষায়, বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমতি বা অনুমোদন ছাড়া যদি কেউ, বৈদেশিক মুদ্রার লেনদেন করে, তাহলে সেটা বাংলাদেশ আইন অনুযায়ী বেআইনি এবং অবৈধ। এবং এটি একটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

সহজ ভাবে বললে, ফরেক্স ট্রেডিং বাংলাদেশে বেআইনি নয়, তবে সেটি বাংলাদেশ ব্যাংক এর নিয়মানুসারে হতে হবে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক আরো স্বচ্ছ ধারণা দিতে পারেন।

ফরেক্স মার্কেটে লেভারেজ বলতে কি বুঝায়?

লাভ বাড়ানোর উদ্দেশ্যে ধার করে ব্যবহার করা ক্যাপিটাল বা মূলধনকেই বলা হয় লেভারেজ। ফরেক্স মার্কেট অনেক বেশি পরিমাণ লেভারেজ দ্বারা প্রভাবিত হয়। কারন, ট্রেডারগণ প্রায়সই তাদের লেভারেজ ব্যবহার করে নিজেদের অবস্থান বুস্ট করেন।

মানুষ কারেন্সি ট্রেড কেনো করে?

কোম্পানি এবং ব্যবসায়ীরা দুটি প্রধান কারণে ফরেক্স ব্যবহার করে: স্পেকুলেশন এবং হেজিং। আগেরটি ব্যবসায়ীরা মুদ্রার দামের উত্থান এবং পতন থেকে অর্থোপার্জনের জন্য ব্যবহার করে, এবং পরেরটি বিদেশী বাজারে উৎপাদন এবং বিক্রয়ের জন্য দাম বিনিময় করতে ব্যবহৃত হয়।

আমি কিভাবে ফরেক্স ট্রেডিং শুরু করতে পারি?

ফরেক্স ট্রেডিং এর প্রথম ধাপ হল মার্কেটের ক্রিয়াকলাপ এবং পরিভাষা সম্পর্কে নিজেকে শিক্ষিত করে তোলা। এর পরে, আপনাকে আপনার আর্থিক এবং ঝুঁকি সহনশীলতার উপর ভিত্তি করে একটি ট্রেডিং কৌশল তৈরি করতে হবে। অবশেষে, আপনার একটি ব্রোকারেজ অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। বর্তমানে, অনলাইনে একটি ফরেক্স অ্যাকাউন্ট খোলা এবং তাতে টাকা ঢোকানো এবং মুদ্রার ব্যবসা শুরু করা আগের চেয়েও অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে। বাংলাদেশ থেকে ফরেক্স ট্রেডিং করার জনপ্রিয় কিছু সাইটঃ

১) https://www.binaryoptions.com/bn/

২) https://forex.com/

৩) https://capital.com/

৪) https://www.home.saxo/

৫) https://www.interactivebrokers.com/

শেষকথা

যেসব ট্রেডারদের মূলধন সীমিত, তাদের জন্যে অন্যান্য ট্রেডিং মার্কেটের তূলনায় ফরেক্স মার্কেটে ডে ট্রেডিংয়ের সুবিধা রয়েছে। আবার যাদের মূলধন অনেক বেশি, তাদের জন্যেও ফরেক্স ট্রেডিংয়ের দ্বার সব সময় উন্মুক্ত। ট্রেডিংয়ের জন্যে অর্থনীতি বোঝা অনেক গুরত্বপূর্ণ। তাই সামষ্টিক অর্থনীতির উপর ট্রেডারদের জোর প্রদান করতে হবে। পর্যাপ্ত পড়াশোনা, এবং বোঝার পরই ট্রেড মার্কেটে প্রবেশ করা শ্রেয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site is protected by reCAPTCHA and the Google Privacy Policy and Terms of Service apply.

Back to top button