অন্যান্যবিজ্ঞান

আগ্নেয়গিরির প্রকারভেদ ও অন্যান্য তথ্য | Volcano

আজ আমরা জানবো আগ্নেয়গিরি সম্পর্কে, ভূমিকম্প কিভাবে হয় আর মেঘমা এবং লাভার মধ্যে পার্থক্য কি । পৃথিবীর গভীরের তাপমাত্রা অনেক গরম যা প্রায় ৬০০০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেট পর্যন্ত হয়ে থাকে । যখন পৃথিবীর গভীরে থাকে প্লেট সরতে থাকে আর দুটির মধ্যে ধাক্কা লাগে তখন ভারি প্লেট নিচের দিকে চলে যায় আর হালকা প্লেট উপরের দিকে উঠে আসে আর এভাবেই সৃষ্টি হয় পর্বতের । যখন ভারী চেপে পৃথিবীর ভিতরের দিকে চলে যায় তখন সেখানে থাকা জিওথার্মাল এনার্জির কারনে প্লেটের লোহা এবং পাথর সব গলে মেগমাতে রূপান্তরিত হয় । আর এত গরমের কারণে পৃথিবীর গভীরে চাপের সৃষ্টি হয় । এই ম্যাগমা হালকা প্লেটের উপর চাপ সৃষ্টি করে আর অবশেষে এই ম্যাগমা হালকা প্লেটকে ভেঙে দিয়ে লাভা রুপে বিস্ফোরণের সাথে বাইরে বের হয়ে আসে যাকে আমরা আগ্নেয়গিরি অথবা ভলক্যানো বলে থাকি ।

আগ্নেয়গিরি সম্পর্কে তথ্য

পৃথিবীর সারফেস বা পৃষ্ঠতলে লাভা জমে যাওয়ার ফলে আগ্নেয়গিরির পাহাড় তৈরি হয় । আর যে নালী বা সুরঙ্গ দিয়ে লাভা বাইরে বের হয়ে আসে তাকে আগ্নেয়গিরির মুখ বলা হয়ে থাকে । এখানে একটা কথা মনে রাখা প্রয়োজন যে ম্যাগমা আর লাভার মধ্যে তেমন কোনো ফারাক নেই যে অতি গরম গলিত পদার্থ পৃথিবীর গভীরে থাকে তাকে বলা হয়ে থাকে ম্যাগমা আর এই ম্যাগমা যখন পৃথিবীর গভীর থেকে বাইরে বের হয়ে আসে তখন তাকে লাভা বলা হয়ে থাকে । যদি কোথাও পৃথিবীর পৃষ্ঠতল কঠিন হয়ে থাকে আর ম্যাগমা কোনরকম ভাবে বাইরে বের হতে না পারে আর আগ্নেয়গিরির এই বিস্ফোরণ না হওয়ায় তাহলে পৃথিবী কেঁপে ওঠে আর ভূমিকম্পের ধাক্কা অনুভব করা যায় । এর প্রেসারে পৃথিবীর প্লেটে আলোড়ন শুরু হয় আর শত শত মাইল পর্যন্ত ভুমিকম্প হয়ে থাকে । আর যদি বিস্ফোরণ হয় তাহলে ম্যাগমার সাথে গ্যাস শিলা আর অন্য অবশেষ লাভা রূপে বাইরে বের হয়ে আসে আর পৃথিবীর পৃষ্ঠতলে জমে যায় ।আগ্নেয়গিরি

আগ্নেয়গিরির প্রকারভেদ

আজ পৃথিবীর ৮০ শতাংশেরও বেশি অংশে আগ্নেয়গিরির অগ্নুৎপাতের ফলাফল আছে । এই আগ্নেয়গিরি মুখ্য তিন প্রকারের হয়ে থাকে।

সক্রিয় আগ্নেয়গিরি

সক্রিয় আগ্নেয়গিরি ওটাই হয় যেখানে সময় সময়ে অগ্নুৎপাত হতে থাকে আজ পৃথিবীতে প্রায় ১৫০০ থেকে বেশি সক্রিয় আগ্নেয়গিরি আছে । ভারতের আন্দামান-নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের বাররান আইল্যান্ডে সক্রিয় আগ্নেয়গিরি আছে আর হাওয়াই দ্বীপের মোনাওয়ালা,ইন্দোনেশিয়ার ক্রাকাতোয়া বিশ্বের সবথেকে প্রমুখ আর ভয়ঙ্কর সক্রিয় আগ্নেয়গিরি ।

সুপ্ত আগ্নেয়গিরি

সুপ্ত আগ্নেয়গিরি কিছু এমন হয় যেটি বছরের পর বছর ধরে শান্ত স্তব্ধ অথবা শুয়ে থাকে । কিন্তু এই সুপ্ত আগ্নেয়গিরি যেকোন সময় সক্রিয় অথবা জেগে উঠতে পারে । তাই এই প্রকারের আগ্নেয়গিরিকে খুবই ভয়ংকর বলে মনে করা হয় । জাপানের ফুজিয়ামা আগ্নেয়গিরি পৃথিবীর সবথেকে সুন্দর সুপ্ত আগ্নেয়গিরি আর কেউ জানে না যে এই সুন্দর আগ্নেয়গিরি কখন তার বিধ্বংসী রূপ ধারণ করতে পারে । ফিলিপাইন্সের মায়ন আগ্নেয়গিরিও এই সুপ্ত আগ্নেয়গিরির মধ্যেই পড়ে । এছাড়াও পৃথিবীর বিভিন্ন অংশে আছে এই ভয়ংকর ঘুমিয়ে থাকা সুপ্ত আগ্নেয়গিরি ।

মৃত আগ্নেয়গিরি

মৃত আগ্নেয়গিরি হল যে আগ্নেয়গিরি যুগ যুগ ধরে শান্ত হয়ে রয়েছে আর যার অগ্নুৎপাত হওয়া একেবারেই বন্ধ হয়ে গেছে । বার্মার পোপা, আফ্রিকার কিলিমাঞ্জারো, সাউথ আমেরিকার ছিমবরাজো এছাড়াও বিভিন্ন আগ্নেয়গিরি আছে যারা আজ মৃত হয়ে পড়েছে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

👍 নিয়মিত পোস্ট পেতে এখনই ফলো করুন 👍


This will close in 10 seconds